মান্নান বিষয়ে ‘নীরব’ দুদক

0
29

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি ॥ ‘অবৈধভাবে সম্পদ অর্জনকারী কুষ্টিয়া পৌরসভার সার্ভেয়ার আব্দুল মান্নানের বিরুদ্ধে নিজের স্ত্রী ও শাশুড়ির নামে গড়ে তুলেছেন অবৈধ সম্পদের পাহাড়। এ বিষয়ে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)’কে অভিযোগ থাকলেও ‘নীরব দর্শকের’ ভূমিকা পালন করছে (দুদক)। দুদকের ভূমিকা সব মহলে প্রশংসিত হয়েছে। কিন্তু মান্নান বিষয়ে অজানা কারণে নিশ্চুপ হয়ে আছে দেশের দুর্নীতি দমনের সর্বোচ্চ সংস্থাটি। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন কুষ্টিয়া পৌরবাসী।

পৌরসভায় ১৯৯৮-৯৯ সালে সার্ভেয়ার ছিলেন রামবাবু। এসিস্ট্যান্ট সার্ভেয়ারের পোষ্ট সৃষ্টি করিয়ে সার্ভেয়ার হিসেবে নিয়োগ পান আব্দুল মান্নান। চাকুরিতে যোগদানের আগে সার্ভেয়ার আব্দুল মান্নান পৌরসভার ময়লা টানা গাড়ীর হেলপার ছিলেন। ওই সময় কুমিল্লার সালাম নামে এক দালালের মাধ্যমে চট্রগ্রাম থেকে সার্ভেয়ারের সাটিফিকেট ২০ হাজার টাকার বিনিময়ে তা কিনে সার্ভেয়ার হয়ে যান তিনি।
সার্ভেয়ার হওয়ার পরই টাকার কুমির বনে গেছেন মান্নান। রাতারাতি আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হয়েছেন বিতর্কিত এই সার্ভেয়ার মান্নান।
এসিস্ট্যান্ট সার্ভেয়ার হওয়ার পরই মান্নানের আয়ও বেড়ে যায়। ‘আঙুল ফুলে কলাগাছ’ হওয়ার বিষয়টি এখন কুষ্টিয়া শহরের ‘টক অব দ্য টাউন’। কিন্তু মান্নানের প্রতিপত্তি ও তার ক্যাডার বাহিনীর ভয়ে কেউই মুখ খুলে না।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে পৌরসভার এক কাউন্সিলর জানান,মান্নানের ক্যাডার বাহিনীর জমি দখলের বিষয়টি এখন কুষ্টিয়া শহরজুড়ে। বাড়াদি এলাকার বহু জমি নিজের আত্মী স্বজনদের নামে নিয়েছেন। মান্নানের ভয়ে বাড়াদি মন্ডল পাড়া এলাকায় বাইরে থেকে কোনো ব্যক্তি জমি কিনতে আসে না। সে কারণে জমি কেনাবেচাও খুবই কম এখানে। যা কিনেন তা শুধু মান্নানই কিনেন কম মূল্য দিয়ে। শুধু তাই নয়,সরকারি খাস জমি দখল ও বিক্রয়ের অভিযোগও রয়েছে মান্নানের বিরুদ্ধে। লোক মুখে শোনা যাচ্ছে অবৈধভাবে অর্জিত এই সম্পদ দিয়ে ঢাকায় গড়েছেন ‘সেকেন্ড হোম’। নামে-বেনামে গড়ে তুলেছেন অঢেল সম্পদ আর প্রাচুর্য।
এত সম্পদ আর দুর্নীতির অভিযোগ যার বিরুদ্ধে সেই সার্ভেয়ার আব্দুল মান্নানের সাথে মুঠোই ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি কলটি রিসিভ করেননি।
এ বিষয়ে দুর্নীতি দমন কমিশন(দুদক) কুষ্টিয়ার উপ-পরিচালক মো.জাকারিয়ার সঙ্গে মুঠোই ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন,এ ব্যাপারে কথা বলা নিষেধ আছে। অফিসে আসেন কথা হবে বলে কলটি কেটে দেন। তারপর একাধিকবার যোগাযোগ করা হলে কলটি রিসিভ করেননি তিনি।